Wednesday, September 28, 2022

অতিবৃৃষ্টিতে ফের জলমগ্ন করিমগঞ্জ শহর

করিমগঞ্জ : কখনো ভারী বৃষ্টি আবার কখনো প্রখর রোদ৷ সম্প্রতিকালে একপ্রস্থ প্রলয়ংকারী বন্যা পরিস্থিতির শনিবার মধ্য রাত থেকে শুরু হওয়া ধারা বর্ষণে শহরের বিভিন্ন এলাকায় ফের বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়৷ শনিবার মধ্যরাত থেকে রবিবার সকাল পর্যন্ত হওয়া বৃষ্টিতে শহরের অনেক এলাকায় কৃত্রিম বন্যার রূপ ধারণ করে৷

শহরবাসীকে এই বন্যা থেকে পরিত্রাণ দিতে নবগঠিত পৌরসভার তরফে প্রারম্ভিক পর্যায়ে জমা জল নিষ্কাশনে যে উদ্যোগ দেখা গিয়েছিল ছার অনেকটাই এখন দেখা যাচ্ছে না বলে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ৷

পৌরসভা গঠনের পর বৃষ্টির জমা জলে বীভৎস অবস্থার সৃষ্টি হলে দলবল নিয়ে মাঠে নামেন পৌরপতি রবীন্দ্রচন্দ্র দেব, উপ-পৌরপতি সুখেন্দু দাস (নিত্য) ও ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক বিক্রম চাষা৷ অনেক স্থানে JCB কাজে লাগানো হয়৷ নিকাশি ব্যবস্থাকে ভালো করতেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়৷

কিন্তু এতেও তেমন ফল মেলেনি৷ শহরের রাস্তাঘাট সহ প্রচুর মানুষের ঘরে জল ঢুকে যায়৷ তবুও এ যাত্রায় কারো দৌড়ঝাঁপ তেমন লক্ষ্য করা যায়নি৷ এ নিয়ে মানুষের মধ্যে ক্ষোভ দেখা গেছে৷

উপ-পৌরপতির ওয়ার্ডে রামকৃষ্ণ মিশনের মোড়ে জমা জল রাস্তায় যানবাহনের চলাচলে অসুবিধা দেখা দিলেও তাঁকে খোঁজে পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ৷

এভাবে বিভিন্ন ওয়ার্ডে জমা জলে মানুষের অসুবিধা হলেও কমিশনারদের নিষ্ক্রিয়তা লক্ষ্য করা গেছে৷ বৃষ্টির জল মেইন রোড, মিশন রোড, রমণী রোড, ব্রজেন্দ্র রোড, ভিকমচান্দ রোড, রায়নগর সহ বিভিন্ন এলাকায় জমা জল মানুষের সমস্যার সৃষ্টি করে৷

উপ-পৌরপতির ওয়ার্ডে পোষ্ট অফিসের সামনা ও আশপাশের এলাকায় ভালো রকম ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় জমা জল অসুবিধার সৃষ্টি করে৷ সরকারি স্কুল সহ আরো কয়েকটি স্কুল সংলগ্ন এলাকায় জমা জল ও বৃষ্টির জল মিলে একাকার হতে দেখা যায়৷

কৃত্রিম বন্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে করিমগঞ্জ পৌরসভার পৌরপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করে সচেতন নাগরিকরা কংগ্রেস জমানায় তৈরী অপরিকল্পিত মাস্টারড্রেন গুড়িয়ে দিয়ে সঠিক পদক্ষেপ নিতে আবেদন জানিয়েছেন৷

Latest Updates

RELATED UPDATES