Tuesday, December 6, 2022

বন্যা বিভীষিকার মধ্যে সম্প্রীতির নিদর্শন উত্তর করিমগঞ্জে

লাতু : সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্ববোধের নিদর্শন দেখা গেলো উত্তর করিমগঞ্জের সীমান্তের এক গ্রামে৷ সৌহার্দ ও সম্প্রীতির দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন সীমান্ত জেলার লক্ষীবাজার জিপির লরিখালি গ্রামের মৃন্ময় দাস৷ সাম্প্রতিক বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ৪টি মুসলিম পরিবারকে নিজ বাড়িতে আশ্রয় দিয়ে মানবিক দায়িত্ব নির্বাহ করলেন তিনি৷ দুর্যোগের সময় প্রতিবেশীদের যাতে কোনও অসুবিধা না হয় তার কারণে তাদের রন্ধন গ্যাসেরও ব্যবস্থা করে দেন৷ প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় ধর্মীয় সম্প্রীতিঐক্যের উদাহরণ সাধারণ মানুষদের আপ্লুত করেছে

জানা গেছে, লক্ষীবাজার জিপির লরিখালি গ্রামের বিস্তীর্ণ অঞ্চল কুশিয়ারা নদীর জলে প্লাবিত৷ কিন্তু বিপন্ন হয়ে গিয়েছিলেন কবির আহমেদ, ময়ূর রহমানের পরিবার৷

এ প্রসঙ্গে মৃন্ময় দাস বলেন, আপদে-বিপদে পড়শীরাই নিকট আত্মীয়৷ আমরা এখন বিপদগ্রস্ত৷ এ সময় হিন্দু-মুসলিম জাতপাত নিয়ে তর্জা করার নয়৷ সব মানুষপরমেশ্বরের সৃষ্টি৷ মানুষ নিজেদের সুবিধা বুঝে জাতপাত নিয়ে নোংরা রাজনীতি করে, অযথা বিবাদ ও হিংসার সৃষ্টি করে৷ নিদানকালে এসব নিয়ে সংযত থাকাই শ্রেয়৷ বিপদকালে পরস্পরকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়াই প্রকৃত মানব ধর্ম বলে মত ব্যক্ত করেন তিনি৷

Latest Updates

RELATED UPDATES