Monday, October 3, 2022

‘রাষ্ট্রপত্নী’ বিতর্ক : সমালোচনার মুখে পড়ে দ্রৌপদী মুর্মুকে চিঠি, ক্ষমা চাইলেন অধীর চৌধুরী

সংবাদ সংস্থা, নতুন দিল্লি : দেশের সম্মানীয় রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুকে (Draupadi Murmu) ‘রাষ্ট্রপত্নী’ বলে বিতর্কের ঝড় তুলেছিলেন কংগ্রেস সাংসদ তথা প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীররঞ্জন চৌধুরী (Adhir Ranjan Chowdhury)। তুমুল সমালোচিতও হয়েছিলেন তার জন্য। সেসবের চাপে পড়ে এবার চিঠি লিখে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হলেন তিনি।

শুক্রবার সন্ধে নাগাদ দ্রৌপদী মুর্মুকে চিঠি লিখলেন অধীর চৌধুরী। মুখ ফসকে ‘রাষ্ট্রপত্নী’ সম্বোধন করেছেন, তার জন্য তিনি ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছেন। রাষ্ট্রপতি যেন ক্ষমা করে দেন।

ঘটনা বুধবারের। কংগ্রেস (Congress) নেতা সোনিয়া গান্ধীকে ইডির জেরার প্রতিবাদে ধরনায় বসেছিলেন অধীর চৌধুরী-সহ দলীয় সাংসদরা। সেসময় এক সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাত্‍কারে অধীর দ্রৌপদী মুর্মুকে রাষ্ট্রপতি না বলে ‘রাষ্ট্রপত্নী’ বলে বসেন। সেই ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই ফুঁসে ওঠে বিজেপি। আসরে নেমে যান স্মৃতি ইরানি। তিনি বলেন, ‘সোনিয়া গান্ধী (Sonia Gandhi) দেশের সর্বোচ্চ আইনসভায় একজন মহিলাকে এভাবে অপমানিত হতে দিলেন। তিনি আদিবাসী বিরোধী, দলিত বিরোধী এবং নারী বিদ্বেষী।’ স্মৃতির দাবি, অধীরকে দ্রুত ক্ষমা চাইতে হবে। শুধু স্মৃতিই নন, নির্মলা সীতারমণ, প্রহ্লাদ যোশীরাও প্রতিবাদে সুর চড়ান।

তবে প্রথমদিকে নিজের মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে রাজি ছিলেন না অধীর চৌধুরী। সাফাই দিয়েছিলেন, তিনি রাষ্ট্রপতি বলতে গিয়েই ভুল করে রাষ্ট্রপত্নী বলে ফেলেছেন। এতে ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্ন নেই। বিজেপি (BJP) তিল থেকে তাল করার চেষ্টা করছে বলেও পালটা তোপ দেগেছিলেন তিনি। তবে পরে পিছু হঠেন তিনি। শুক্রবার চিঠি লিখে ক্ষমা চেয়েছেন অধীররঞ্জন চৌধুরী। ‘রাষ্ট্রপত্নী’ নেহাত্‍ই মুখ ফসকে বলে ফেলা। আর কখনওই এমনটা হবে না। রাষ্ট্রপতি যেন তাঁকে ক্ষমা করে দেন, এই মর্মে চিঠি লিখেছেন কংগ্রেসের বর্ষীয়ান সাংসদ।

Latest Updates

RELATED UPDATES